top of page
Search

মন্তাজ


দ্বায়ীত্বের মায়া জাল।নিয়মে বাঁধা সময়ের কাঁটা। মধ্যবিত্ত জীবনযাপন।

ক্ষয়িষ্ণু স্বপ্নরা জানলা খোঁজে। অপেক্ষারত আমি, যদি হয় প্রত্যাবর্তন।

উপেক্ষিত অনুভূতিরা আজকাল কাউকে বিশেষ ছোঁয়না।

তাই কিছুটা না হয় দেয়াল জানুক বাকিটা না হয় আয়না।

অভিমানী মন । একলা এখন।

শুন্যতা চারিদিক তবুও বলা বারন।

আমার একাকিত্ব, সে তো সর্বগ্রাসী।

বিন্দু বিন্দু জল, তুই বারান্দায় এলোকেশী।

তোর ঠোঁটে, বিকালের সোনালী আলো, নিস্পন্দ সময়।

হওয়ায় ওড়া রামধনু রঙা পালক, নিতান্তই অসহায়।

তোর চোখের তারার সবুজ আগুন, পুড়িয়ে দিল চোখ।

বয়ঃসন্ধির মোহনায় ডুবছি আমি, জটিল মনের রোগ।

পরাশর এর তীর এ আহত আমি একা, বিষের অগ্নি জ্বালা।

মেঘেরা আজ নিয়েছে ছুটি তাও এখনই বৃষ্টি নামার পালা।

একাইতো ছিলাম ভালো। তবু তুই করে গেলি একলা।

নিঃসঙ্গতার ধূসর আকাশে বানভাসি বৃষ্টি, এক পশলা।

শুন্য সীমান্তে আজ রক্তিম রেখা, রূপালী পারিজাতে ঢেকেছে ফাগুন।

তবুও হয়তো জ্বলছে ধূপ অন্য কোথাও। নিয়ে বুকের মাঝে আগুন।

আজও এলে ঢেউ অসময়ে, সাদা পাতায় রঙের কাঁপন।

অগোছালো ঘর। বিবর্ণ অনুভূতি। স্মৃতির প্রলয় নাচন।

সকালের কলরব পার হয়ে আসে অনুতপ্ত দুপুর। ছুঁয়ে যায় মনের ভুলে।

নক্ষত্রহীন শীতের বিকেল ঠোঁট মুছে যায়, তোর কালো খোলা চুলে।

বসন্তরা আজ আটকে আছে বই এর ভাঁজে, ঝরা পাতার মন্তাজ।

মন খারাপদের নিঃশব্দে আনাগোনা, 'ভালো আছি' নিছকই আন্দাজ।

37 views0 comments

Recent Posts

See All

Comments


bottom of page